1. info2@kamalgonjerdak.com : কমলগঞ্জের ডাক : Hridoy Islam
  2. info@kamalgonjerdak.com : admin2 :
  3. editor@kamalgonjerdak.com : Editor : Editor
সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:৪১ পূর্বাহ্ন

কমলগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনায় হামলায়, ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে ক্ষতবিক্ষত মা

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১৯ মে, ২০২০
  • ১৩০০ জন পড়েছেন

কমলগঞ্জে নৃশংস অমানবিক সন্ত্রাসী হামলায় আহত ৬ জন, ছেলেকে বাঁচতে ক্ষুরের আঘাতে মায়ের স্তন ক্ষতবিক্ষতবিস্তারিতঃ https://kamalgonjerdak.com/2020/05/19/%E0%A6%95%E0%A6%AE%E0%A6%B2%E0%A6%97%E0%A6%9E%E0%A7%8D%E0%A6%9C%E0%A7%87-%E0%A6%A4%E0%A7%81%E0%A6%9A%E0%A7%8D%E0%A6%9B-%E0%A6%98%E0%A6%9F%E0%A6%A8%E0%A6%BE%E0%A7%9F-%E0%A6%B9%E0%A6%BE%E0%A6%AE

Posted by Kamalgonjerdak.com on Tuesday, May 19, 2020

কমলগঞ্জ প্রতিনিধিঃ কমলগঞ্জে ব্যাটারি চালিত টমটম অটোরিকশাকে সাইট দেওয়া নিয়ে কথা কাটাকাটির জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলার মীর হোসেন নামের এক পল্লী চিকিৎসক সহ ৬ জন আহত হয়েছেন। হামলাকারীদের হাত থেকে ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে আহত হয়েছেন পুল্লী চিকিৎসকের মা মিনু বেগম। হামলাকারীরা ক্ষুর দিয়ে তার একটি স্তন ক্ষতবিক্ষত করেছে।
সোমবার রাত ৯টার দিকে কমলগঞ্জের দক্ষিণ রাজটিলা গ্রামে নৃশংস এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় গুরুতর আহতদের উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে বাইজিদ নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।
জানা যায়, সোমবার বিকালে মোটরসাইকেলে বাড়ি ফিরছিলেন পল্লী চিকিৎসক মীর হোসেন। বিকাল ৫ টার দিকে কমলগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের সামনে বিপরীত দিক থেকে আসা ব্যাটারি চালিত টমটম অটোরিকশাকে সাইট দেওয়া নিয়ে টমটম চালক মনু মিয়ার সাথে কথা কাটাকাটি হয় মীর হোসেনের। তাৎক্ষনিক এ বিষয়টি মিমাংশা করেন স্থানীয় পথচারীরা। এ ঘটনার জের ধরে রাত ৯টার দিকে পল্লী চিকিৎসক মীর হোসেনের দক্ষিণ রাজটিলা গ্রামের নিজ বাড়ির সামনে তার উপর অতর্কিত হামলা করা হয়।

টমটম চালক মনু মিয়া তার ভাই সানু মিয়া,শাহাবউদ্দিনের নেতৃত্বে তার আত্মীয়স্বজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র তার উপর হামলা করেন। হামলাকারীরা দা ও ক্ষুর দিয়ে মাথা, ঘাড় ও পিঠে একাধিক আঘাত করে। তার চিৎকারে তার মাসহ ভাই এবং স্বজনরা এগিয়ে আসলে তাদের উপরও হামলা করা হয়। হামলাকারীরা ক্ষুর দিয়ে আঘাত করে পল্লী চিকিৎসক মীর হোসেনের মা মিনু বেগমের একটি স্তন ক্ষতবিক্ষত করে। হামলায় পল্লী চিকিৎসক মীর হোসেন,তার মা মিনু বেগম ছাড়াও আহত হয়েছেন, আমজাদ মিয়া,আক্কাস মিয়া,আজাদ মিয়া,ইয়াছিন মিয়া। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখান থেকে পরে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়ে কমলগঞ্জ থানার ওসি আরিফুর রহমান জানান, খবর পেয়ে দ্রুত পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। গভীর রাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে হামলায় জড়িত হোসেন মিয়ার ছেলে মোজাহিদ মিয়া (১৮), আব্দুল বারীর ছেলে বায়েজীদ মিয়া (২০), নূর মিয়ার ছেলে শাহাব উদ্দীন (২৫) ও কাশেম মিয়ার ছেলে নুর মিয়াকে (৫০) আটক করা হয়েছে। বাকি প্রধান হামলাকারীদের আটকের চেষ্টা চলছে।

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন....
© ২০২০-২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কমলগঞ্জের ডাক | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Developed By : Radwan Ahmed
error: কপি সম্পূর্ণ নিষেধ !!