1. info2@kamalgonjerdak.com : কমলগঞ্জের ডাক : Hridoy Islam
  2. info@kamalgonjerdak.com : admin2 :
  3. editor@kamalgonjerdak.com : Editor : Editor
বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৭:৪২ অপরাহ্ন

দুদক কর্মকর্তা-কর্মচারী পরিচয়ে প্রতারণায় কঠোর ব্যবস্থা: ইকবাল মাহমুদ

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১৯ মে, ২০২০
  • ৩৬৬ জন পড়েছেন

ডাক অনলাইন ডেস্কঃ  দেশের বিভিন্ন স্থানে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কর্মকর্তা-কর্মচারী পরিচয়ে প্রতারণা ও অবৈধ অর্থ আদায়ের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুঁশিয়ারী জানিয়েছেন কমিশনের চেয়ারম্যান ইকবাল মহামুদ। মঙ্গলবার দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচারর্য দেশ রূপান্তরকে বিষয়টি জানিয়েছেন।

প্রণব জানান, কমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারী কিংবা তাদের আত্মীয়-স্বজন পরিচয় দিয়ে প্রতারক চক্র সক্রিয় রয়েছে। তারা সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন বেসরকারি ব্যক্তিদের মোবাইল বা টেলিফোনের মাধ্যমে ভয়ভীতি দেখিয়ে অনৈতিক অর্থ দাবি করছে।

কমিশনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা দুদক চেয়ারম্যানকে মঙ্গলবার এ জাতীয় প্রতারণার বিষয়গুলো অবহিত করেন।
দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ‘করোনার এই মহা দুর্যোগকালেও একাধিক প্রতারক চক্র সক্রিয় রয়েছে। তারা দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে একাধিক সরকারি কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের হয়রানী করছে বলে আমাদের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের জানিয়েছেন। এসব প্রতারকচক্র সরকারি কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের দুদক কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে টেলিফোন করেছেন এবং বলেছেন তাদের বিরুদ্ধে দুদকে অভিযোগ রয়েছে। এসব অভিযোগ থেকে অব্যাহতি পেতে তাদের বিকাশ বা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে অর্থ দাবি করছে। অনেকে ভীত হয়ে তাদের অর্থ দিয়ে দিচ্ছেন। ’

দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ‘দুদক কর্মকর্তা-কর্মচারী কিংবা কমিশনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ কিংবা তাদের আত্মীয়-স্বজন পরিচয় দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে প্রতারক চক্র সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করছে। কমিশন থেকে বার বার এসব বিষয়ে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। কখনো কমিশনের নিজস্ব গোয়েন্দাদের মাধ্যমে প্রতারকদের গ্রেপ্তাতার করা হয়েছে, আবার কোনো কোনো ক্ষেত্রে পুলিশ বা র‌্যাবের সহায়তায় প্রতারকদের গ্রেপ্তাতার করে মামলা দায়ের হয়েছে।

বেশ কিছু মামলা বিচার ও তদন্তাধীন রয়েছে। ’
ইকবাল মাহমুদ বলেন, ‘আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি সর্বসাধারণকে অনুধাবন করতে হবে, কমিশনের বিবেচনাধীন কোনো অভিযোগ অনুসন্ধান বা তদন্তের বিষয়ে দুদক কর্মকর্তাদের টেলিফোন করার কোনো সুযোগ নেই। যা প্রশাসনিক নির্দেশনার মাধ্যমে অনেক আগ থেকেই নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ ছাড়া যেসব প্রতারককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের আইনি হেফাজতে নিয়ে জ্ঞিাসাবাদসহ বিভিন্ন প্রযুক্তিগত বিশ্লেষণ এবং গোয়েন্দা তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, এসব ঘটনায় দুদকের কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী সম্পৃক্ত নয়। ’

চেয়ারম্যান বলেন, ‘দুদকের বিবেচনাধীন বা অনুসন্ধানাধীন বা তদন্তাধীন কোনো অভিযোগ থেকে কমিশনের কোনো কর্মকর্তার একক অভিপ্রায় অনুসারে অব্যাহতি দেওয়া কিংবা অভিযুক্ত করার কোনো সুযোগ নেই। কমিশনের অনুসন্ধান বা তদন্ত এমন একটি প্রক্রিয়া, যা তদন্তকারী কর্মকর্তা থেকে শুরু করে কমিশনের সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষ সবাই সম্পৃক্ত। কমিশনের আইন-অনুযায়ী কমিশনের সব সিদ্ধান্ত কমিশন গ্রহণ করা হয়ে থাকে । তাই এ জাতীয় প্রতারকদের টেলিফোনে কেউ বিভ্রান্ত হবেন না। এদের সঙ্গে অনৈতিক আর্থিক লেনদেনে কেউ জড়াবেন না। এ জাতীয় প্রতারকদের অনৈতিকভাবে অর্থ দেওয়া দুর্নীতির শামিল। তাই এসব প্রতারকদের আইন আমলে নিয়ে আসার জন্য নিকটস্থ থানা অথবা র‌্যাব কার্যালয় বা দুদকের স্থানীয় সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে অভিযোগ জানান’।

প্রয়োজনে দুদকের পরচিালক (গোয়েন্দা) মীর মো. জয়নুল আবেদীন শিবলী (মোবাইল নং ০১৭১১-৬৪৪৬৭৫) অথবা দুদক পরিচালক (জনসংযোগ) প্রনব কুমার ভট্টাচার্য্যকে ( মোবাইল নং ০১৭১৬-৪৬৩২৭৬) অভিযোগ জানাবেন। ’

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন....
© ২০২০-২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কমলগঞ্জের ডাক | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Developed By : Radwan Ahmed
error: কপি সম্পূর্ণ নিষেধ !!