1. info2@kamalgonjerdak.com : কমলগঞ্জের ডাক : Hridoy Islam
  2. info@kamalgonjerdak.com : admin2 :
  3. editor@kamalgonjerdak.com : Editor : Editor
শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০৮:১৪ পূর্বাহ্ন

যুক্তরাষ্ট্রের বিক্ষোভকারীদের প্রতি সমর্থন ইরাকিদের

  • প্রকাশিত : শনিবার, ৬ জুন, ২০২০
  • ৪৪৬ জন পড়েছেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: >> যুক্তরাষ্ট্রের সেনাদের ইরাক আক্রমণের ১৭ বছর পার হয়ে গেলেও দেশটি ছাড়ছে না তারা। মার্কিনিদের অত্যাচার ইরাকিদের চাইতে বেশি কে বোঝে। তাই যুক্তরাষ্ট্রের বর্ণবাদ বিরোধী বিক্ষোভকারীদের জোর সমর্থন তাদের। আন্দোলনকারীদের সুরে তারাও বলছে- “নিশ্বাস নিতে চাই আমরাও”।

গত ২৫ মে মিনেপোলিসে পুলিশের হাতে কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যার পর যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে যে বিক্ষোভের আগুন চলছে ইরাকিরা তাতে খুব নজর রাখছে বলে এএফপির একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। বাগদাদের তাহরির স্কয়ারে মানুষজনের তৎপরতা ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাদের অভিব্যক্তিতেও তা প্রকাশ পাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের আন্দোলনকারীদের সমর্থন জানিয়ে তাহিরির স্কয়ারে ইয়াসিন আলা নামে ২০ বছর বয়সী এক যুবক এএফপিকে বলেন, “আমি মনে করি, আমেরিকানরা সাহসী কাজ করছে। তাদের ক্ষুব্ধ হওয়াই উচিত। তবে লুটপাট কোনো সমাধান আনবে না।”

“কালো ও সাদারা ঐক্যবদ্ধ হলে তারা বর্ণবাদ ছুড়ে ফেলে দিতে পারবে। বর্ণবাদ প্রথা তাদের আর কখনো থামাতে পারবে না।”

তাহরির স্কয়ারের নানা আন্দোলনের নিয়মিত মুখ ৩১ বছর বয়সী হায়দার করিমের মতে, যুক্তরাষ্ট্রের বিক্ষোভকারী ও ইরাকিদের মধ্যে মিল আছে। তা হলো উভয়ই যুক্তরাষ্ট্রের অবিচার থেকে মুক্তি চায়।

“যুক্তরাষ্ট্রে যা হচ্ছে, তা হলো বর্ণবাদ যুদ্ধ। আর এখানে যেটা চলছে সেটা হলো- রাজনীতি ও ধর্মের যুদ্ধ। তবে আমাদের যেটাতে মিল, তা হলো- অবিচার। আমরা উভয়ই এর ভুক্তভোগী।”

অবশ্য ইরাকেও বর্ণবৈষম্যের ইতিহাস রয়েছে। বিশেষ করে দক্ষিণ ইরাকের অধিবাসীরা আফ্রো-ইরাকি, জাতিগত দিক থেকে তারা পূর্ব আফ্রিকার।

২০১৩ সালে আফ্রো-ইরাকি নেতা জালাল তাইয়েবকে তেল সমৃদ্ধ নগরী বসরায় গুলি করে হত্যা করা হয়। তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই আফ্রো-ইরাকিদের সঙ্গে মূল ইরাকিদের বৈষম্যের ব্যাপারটি অসহিংস।

এ ব্যাপারে আফ্রো-ইরাকি ৩৪ বছর বয়সী আলি এসাম এএফপিকে বলেন, “আমেরিকার বর্ণবাদ থেকে আমাদের বর্ণবৈষম্য ভিন্ন। এখানে কালো চামড়ার বিষয়টি নিয়ে হাসি-ঠাট্টা করা হয়। কিন্তু আমেরিকায় শুধুমাত্র কালো হওয়ার কারণে আপনাকে ভয়ে থাকতে হয়।”

যুক্তরাষ্ট্রের বিক্ষোভকারীদের প্রতি সংহতি প্রকাশ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও ইরাকিদের তৎপরতা লক্ষণীয়। ‘আমেরিকা রিভল্ট’ তথা ‘আমেরিকা বিদ্রোহ’ হ্যাশট্যাগ শেয়ার করছেন অনেকে।

যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান পরিস্থিতিকে অনেকে ‘বাগদাদের স্মৃতিচারণ’ হিসেবেও উল্লেখ করছেন। দেশের রাস্তাগুলোর বর্তমান অবস্থা নিয়ে খোদ মিনেসোটার গভর্নর বলেছেন “পরিস্থিতি মোগাদিসু বা বাগদাদকে মনে করিয়ে দিচ্ছে।”

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন....
© ২০২০-২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কমলগঞ্জের ডাক | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Developed By : Radwan Ahmed
error: কপি সম্পূর্ণ নিষেধ !!