1. info2@kamalgonjerdak.com : কমলগঞ্জের ডাক : Hridoy Islam
  2. info@kamalgonjerdak.com : admin2 :
  3. editor@kamalgonjerdak.com : Editor : Editor
রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৪:১৯ পূর্বাহ্ন

সেনাবাহিনীকে প্রস্তুত থাকতে বললেন সিসি

  • প্রকাশিত : রবিবার, ২১ জুন, ২০২০
  • ৪৩৮ জন পড়েছেন
A handout picture released by the Egyptian Presidency on April 7, 2020, shows Egyptian President Abdel Fattah al-Sisi(C) wearing a facemask as a protective measure against the novel coronavirus, during a visit to the Huckstep military base east of the capital Cairo. (Photo by - / EGYPTIAN PRESIDENCY / AFP) / === RESTRICTED TO EDITORIAL USE - MANDATORY CREDIT "AFP PHOTO / HO / EGYPTIAN PRESIDENCY' - NO MARKETING NO ADVERTISING CAMPAIGNS - DISTRIBUTED AS A SERVICE TO CLIENTS ==

অনলাইন ডেস্ক:; প্রতিবেশী লিবিয়ায় তুরস্কের অনবরত ড্রোন হামলায় ব্যাকফুটে হাফতার বাহিনী। মিত্রের পরাজয় অত্যাসন্নে লিবিয়ায় সেনা পাঠানোর আভাস দিয়েছেন মিসরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসি। দেশ ও দেশের বাইরে যেকোনো সময় অভিযান পরিচালনার জন্য সেনাবাহিনীকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

সেই সঙ্গে মিত্র খলিফা হাফতারের লিবিয়ান ন্যাশনাল আর্মি- এলএনএ’র দখলে থাকা দেশটির পূর্বাঞ্চলে আগুয়ান না হতেও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত লিবিয়ার জাতীয় কোয়ালিশন সরকারের জিএনএ বাহিনীকে সতর্ক করে দিয়েছেন সিসি।

উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত জিএনএ সরকারের বাহিনী সম্প্রতি তুরস্কের সহায়তায় সম্প্রতি রাজধানী ত্রিপোলি থেকে এলএনএ বাহিনীকে বিতাড়িত করেছে। অন্যান্য অঞ্চলেও আধিপত্য হারাতে বসেছে রাশিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিশর সমর্থিত হাফতার নেতৃত্বাধীন এই বাহিনী।

এতে উদ্বেগটা বেশি বেড়েছে লিবিয়ার প্রতিবেশী মিসরের। এমন অবস্থায় শনিবার হঠাৎ করেই পশ্চিম লিবিয়ার সীমান্ত ঘেঁষা মিসরের একটি বিমানঘাঁটি পরিদর্শনে যান প্রেসিডেন্ট সিসি। রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের ফুটেজে দেখা গেছে, সেখানে তিনি ফাইটার জেট, ও হেলিকপ্টারের ওঠা-নামা দেখছেন তিনি।

বিমানঘাঁটিতে পাইলট ও স্পেশাল ফোর্সের অফিসারদের উদ্দেশে সিসি বলেন, “দেশের অভ্যন্তরে যেকোনো অভিযানের জন্য জন্য প্রস্তুত থাকো। প্রয়োজনে আমাদের সীমান্তের বাইরেও অভিযান চালানো হতে পারে।”

এ সময় নিজেদের সেবাবাহিনীকে এই অঞ্চলের অন্যতম শক্তিশালী বলে উল্লেখ করেন সিসি, “এটা খুবই ভারসাম্যপূর্ণ বাহিনী; এই বাহিনী নিজেদের রক্ষা করে, কাউকে হুমকি দেয় না…এটাই আমাদের কৌশল, বিশ্বাস এবং নীতি, যা আমরা কখনো পরিবর্তন করব না।”

লিবিয়ার ইস্যুতে সিসি বলেন, মিশর কখনই লিবিয়ার ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করতে চায়নি। কিন্তু ‘বর্তমান পরিস্থিতি ভিন্ন’।

“যদি কেউ মনে করে তারা সির্তে-জুফ্রা ফ্রন্টলাইন অতিক্রম করবে, তাহলে সেটা আমাদের জন্যও রেড লাইন হবে।”

“লিবিয়ার জনগণ যদি আমাদের কাছে আসে এবং আমাদের হস্তক্ষেপ কামনা করে, তখন বিশ্বের জন্য একটা সতর্কবার্তা দেওয়া হবে, মিশর ও লিবিয়া এক দেশ এবং একটি স্বার্থ।”

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন....
© ২০২০-২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কমলগঞ্জের ডাক | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Developed By : Radwan Ahmed
error: কপি সম্পূর্ণ নিষেধ !!