1. info2@kamalgonjerdak.com : কমলগঞ্জের ডাক : Hridoy Islam
  2. info@kamalgonjerdak.com : admin2 :
  3. editor@kamalgonjerdak.com : Editor : Editor
‘নিজ দেশে ইসলামবিদ্বেষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে তুরস্কের সমালোচনা’
বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:০০ পূর্বাহ্ন

‘নিজ দেশে ইসলামবিদ্বেষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে তুরস্কের সমালোচনা’

  • প্রকাশিত : রবিবার, ১২ জুলাই, ২০২০
  • ১৩৫ জন পড়েছেন

অনলাইন ডেস্ক :: আয়া সোফিয়া জাদুঘরকে মসজিদে রূপান্তর নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলের নিন্দাকে পাত্তা দিলেন না তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোয়ান। শুক্রবার সেখানে আনুষ্ঠানিকভাবে নামাজের ঘোষণা দেন তিনি।

ষষ্ঠ শতাব্দীতে বাইজান্টাইন সাম্রাজ্যের অধিপতি সম্রাট প্রথম জাস্টিনিয়ানের নির্দেশে আয়া সোফিয়া নির্মিত হয়। ওই সময় এটিই ছিল পৃথিবীর সবচেয়ে বড় গির্জা।

এরপর ১৪৫৩ সালে ইস্তাম্বুল অটোম্যান সাম্রাজ্যের দখলে গেলে একে মসজিদে পরিণত করা হয়। ১৯৩৪ সালে মুস্তফা কামাল আতাতুর্ক স্বাক্ষরিত এক ডিক্রিতে মসজিদটিকে জাদুঘরে পরিণত করা হয়।

শুক্রবার আদালতের রায়ের পর আয়া সোফিয়াকে মসজিদে রূপান্তরের ঘোষণা দেন এরদোয়ান। তুরস্কের এই সিদ্ধান্তে আন্তর্জাতিক মহলে বিতর্কের ঝড় উঠে।

এ নিয়ে এক প্রতিক্রিয়ায় লাইভ ব্রডকাস্টে শনিবার এরদোয়ান বলেন, জাদুঘর থেকে আয়া সোফিয়াকে মসজিদে রুপান্তর করার সিন্ধান্ত তার দেশের ‘সার্বভৌমত্ব অধিকার’ ব্যবহার করার ইচ্ছা প্রতিনিধিত্ব করে।

তিনি বলেন, অন্য সব মসজিদের মতো এখন থেকে হায়া সোফিয়ার দরজাও (মুসল্লিদের জন্য) খোলা। তুরস্কের সকল নাগরিক ও পর্যটকদের জন্যও এটি উন্মুক্ত। নীল মসজিদের মতো সব ধর্মের মানুষই এখানে আসতে পারবে। তবে আদালতের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কোনো আপত্তি আমাদের সার্বভৌমত্ত্বকে লঙ্ঘন হিসেবেই ধরা হবে।

এরদোয়ান বলেন, ইতিহাস স্বাক্ষী আছে পুরো দেশে সব জায়গায় সহিষ্ণুতা আনতে আমরা কী রকম সংগ্রাম করেছি। আজ ৪৩৫টি গির্জা ও সিনাগগ প্রার্থনার জন্য উন্মুক্ত আছে। এরপরেও নানা জায়গায় (হায়া সোফিয়া নিয়ে) বিতর্ক দেখছি।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট বলেন, যারা নিজেদের দেশে ইসলামবিদ্বেষের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেয় না, তারাই তুরস্কের সার্বভৌম অধিকারের ইচ্ছার ওপর আক্রমণ করে।

এদিন সন্ধ্যার পর তিনি ভাষণ দেয়ার সময় একদল মুসল্লি হায়া সোফিয়ার বাইরের চত্ত্বরে মগরিবের জামাত আদায় করছিল।

এরদোয়ান জানান, হায়া সোফিয়াকে পুরোপুরি মসজিদের জন্য প্রস্তুত করতে ছয় মাস লেগে যেতে পারে। এর জন্য অপেক্ষা করে না করে সেখানে নামাজের জন্য ছুটে যেতে আহ্বান জানান তিনি।

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন....
© ২০১৯-২৩ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কমলগঞ্জের ডাক | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Developed By : Radwan Ahmed
error: কপি সম্পূর্ণ নিষেধ !!