1. info2@kamalgonjerdak.com : কমলগঞ্জের ডাক : Hridoy Islam
  2. info@kamalgonjerdak.com : admin2 :
  3. editor@kamalgonjerdak.com : Editor : Editor
শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০৬:৩৬ পূর্বাহ্ন

ধলই চা বাগান বন্ধ ঘোষণার পর কারখানার সামনে চা শ্রমিকদের অবস্থান

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২৮ জুলাই, ২০২০
  • ৫৩৫ জন পড়েছেন

নিজস্ব প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের ধলই চা বাগান কর্র্তৃপক্ষ স্থানীয় মাধবপুর ইউপি চেয়ারম্যানের ইন্ধনে শ্রমিকদের উশৃঙ্খল করে তুলায় অনির্দিষ্টকালের বন্ধ ঘোষণা করে। ঘটনায় মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) সকাল ১১টায় ধলই চা বাগার কারখারার সামনে সহস্রাধিক চা শ্রমিক অবস্থান নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে।

মঙ্গলবার সকালে সরেজমিন ধলই চা বাগানে গেলে চা বাগান চা শ্রমিকরা বলেন, ‘সোমবার সকাল থেকে ব্যবস্থাপক ও বাগান কর্মচারীরা তাদেরকে দিয়ে ৩ গুন চা পাতা উত্তোলণ করান। কারখানার বাবু গোলাম হোসেন তাদেরকে বলেছিলেন মঙ্গলবার বিদ্যুৎ থাকবে না তাই যেন তারা অতিরিক্ত কাজ করেন। সে হিসেবে তারা এক দিনে ৩ গুন কাজ করেছেন। সোমবার সন্ধ্যায় ধলই চা বাগান কোম্পানীর উপ-মহা ব্যবস্থাপক এম এম ইসলাম স্বাক্ষরিত একটি নোটিশ টাঙিয়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য চা বাগান বন্ধ ঘোষণা করা হয়।
নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে, চা বাগানে শ্রমিক অসন্তোষ চলছে এ অবস্থায় চা বাগানে নিরাপত্তার অভাবে ধলই চা বাগান অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ধলই চা বাগানে কোন প্রকার শ্রমিক অসন্তোষ নেই।’

বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রামভজন কৈরী বলেন, ‘ধলই চা বাগানের ব্যবস্থাপক আমিনুল ইসলামের অপসারণের দাবিতে গত ২৯ জুন চা বাগানে শান্তিপূর্ণভাবে চা শ্রমিকরা ১ দিনের কর্মবিরতি পালন করেছিল। তাৎক্ষনিক অভিযুক্ত ব্যবস্থাপক আমিনুল ইসলামকে প্রদান কার্যালয়ে নেওয়া হয় তার কর্মস্থলে ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপক হিসেবে জাকারিয়া হাবিবকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। চা শ্রমিকরা ধলই চা বাগান কোম্পানীর প্রধান কার্যালয়ের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় থেকে শান্তিপূর্ণভাবে চা বাগানে কাজ করছিল। যে অজুহাতে চা বাগান বন্ধ ঘোষণা করা হয় তা শ্রম আইনের পরিপন্থী।

তবে ধলই চা বাগানের অভিযুক্ত প্রধান ব্যবস্থাপক মো. আমিনুল ইসলাম মুঠোফোনে জানান, মাধবপুর ইউপি চেয়ারম্যান পুষ্প কুমার কানুর ইন্ধনে শ্রমিকদের উশৃঙ্খল করে তুলা হয়েছে। তাই উশৃঙ্খল শ্রমিকদের কারণেই বাগান বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছি।

এ বিষয়ে জানতে গেলে কমলগঞ্জ থানার ওসি মো. আরিফুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘ধলই চা বাগানে যাতে পরিস্থিতি ভালো থাকে সে জন্য সেখানে মঙ্গলবার সকাল থেকে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।’

কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক বলেন, ‘চা বাগানে কোন সমস্যা ও বা শ্রমকি অসন্তোষ হলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে তাকে অবহিত করলে ভালো হতো। ধলই চা বাগান কর্তৃপক্ষ কখনও কোন বিষয়ে তাকে অবহিত করে না। তিনি আরও বলেন, একটি নোটিশের কপি পেয়ে তিনি জানতে পারলেন শ্রমিক অসন্তোষের কারণে ধলই চা বাগান অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে,নোটিশে উল্লেখিত কারণের সাথে বাস্তবের কোন মিল নেই। ধলই চা বাগানে এখন শান্তিপূর্ণ অবস্থা বিরাজ করছে।’

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন....
© ২০২০-২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কমলগঞ্জের ডাক | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Developed By : Radwan Ahmed
error: কপি সম্পূর্ণ নিষেধ !!