1. info2@kamalgonjerdak.com : কমলগঞ্জের ডাক : Hridoy Islam
  2. info@kamalgonjerdak.com : admin2 :
  3. editor@kamalgonjerdak.com : Editor : Editor
বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:৪৫ অপরাহ্ন

বঙ্গবন্ধু ও একবিংশ শতাব্দীর এশীয় রাজনীতি

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২৫ আগস্ট, ২০২০
  • ৯৬ জন পড়েছেন

অনলাইন ডেস্ক:: জাতীয় সংসদের শূন্য হওয়া পাঁচটি আসনের (সিরাজগঞ্জ-১, পাবনা-৪, ঢাকা-৫, ঢাকা-১৮ ও নওগাঁ-৬) উপনির্বাচনে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের ভিড় বেড়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগে। প্রয়াত সংসদ সদস্যদের স্ত্রী, ছেলেমেয়ে এমনকি আত্মীয়স্বজনও দলীয় মনোনয়ন কিনেছেন। কিন্তু আসনগুলোতে দলীয় প্রার্থী বাছাইয়ে এবার খতিয়ে দেখা হচ্ছে মনোনয়ন সংগ্রহকারীর ১২ বছরের আমলনামা। যারা দলের দুর্দিনে ছিলেন, সাংগঠনিকভাবে অভিজ্ঞ, নিবেদিত ও সৎ রাজনীতিক—কেবল তারাই এবার বিবেচিত হবেন। এ বিষয়ে দলের সভাপতির অবস্থান কঠোর। ফলে অর্থের বিনিময়ে দলে অনুপ্রবেশকারী বিএনপি নেতা, রাজাকারের সন্তান, মাদক কারবারি ও হত্যা মামলার আসামিদের অবস্থা নড়বড়ে হচ্ছে দলে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, শূন্য হওয়া পাঁচটি আসনে আওয়ামী লীগের চূড়ান্ত সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভা আজ হওয়ার কথা থাকলেও অনিবার্য কারণবশত তা পিছিয়ে গেছে। বোর্ডে সভাপতিত্ব করবেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। সূত্রে জানা গেছে, দলের সভাপতি যাকেই মনোনয়ন দেবেন, তার পক্ষে অন্যরা কাজ করবেন। মনোনয়ন না পেয়ে দলের প্রার্থীর বিরুদ্ধে কাজ করলে, তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের ঘোষণাও দেবেন দলীয়প্রধান।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, সভায় দলের হাইকমান্ড প্রার্থী বাছাই প্রক্রিয়ায় উড়ে এসে জুড়ে বসাদের এবার কোনোভাবেই মনোনয়ন দেবে না। যারা দীর্ঘদিন ধরে (২০০৮ এর আগে) আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে জড়িত কেবল তারাই বিবেচিত হবেন। এ বিষয়ে দলের সভাপতির অবস্থান কঠোর। এছাড়াও নির্বাচিত এলাকা সম্পর্কে তার জ্ঞান পর্যালোচনা করবেন। এলাকার ভোটার এবং এলাকার সমস্যা ও সম্ভাবনা ইত্যাদি সম্পর্কে প্রার্থী কতটা জানেন। নির্বাচনে জয়ী হলে এলাকা নিয়ে তার কর্মপরিকল্পনা কি। এরপর যদি এমপি হয়ে থাকেন, তাহলে বিগত দিনে তার উল্লেখযোগ্য কর্মকান্ড কি, আর যদি এমপি না হন তাহলে এলাকার জন্য তার বিশেষ অবদান কি আছে তাও খতিয়ে দেখা হবে।

এছাড়া নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী লীগে প্রার্থীর অবস্থান, অভ্যন্তরীণ কোন্দলে জড়িত কিনা বা দলের জন্য তার অবদান; বিশেষ করে করোনা বা বন্যায় এবং দলের সংকটকালে (যেমন-১/১১ বা ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা, ২০১৪-১৫ সালে আগুন সন্ত্রাস) রুখতে প্রার্থীর ভূমিকা কি—এই সময়গুলোতে যাদের অবদান বেশি তারা মনোনয়নের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন।

আরো দেখা হবে, ২০০৮ সাল থেকে দল টানা ক্ষমতায় রয়েছে অর্থাৎ সাড়ে ১১ বছরের বেশি সময় ধরে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় রয়েছে। এ সময়ের মধ্যে দলের নাম ব্যবহার করে বিভিন্ন দুর্নীতি এবং অপকর্মের কারণে মনোনয়ন সংক্রান্ত সংসদীয় বোর্ড এ ক্ষেত্রে কঠোর অবস্থান নেবে। অর্থ্যাৎ প্রার্থীর আর্থিক সক্ষমতা; নির্বাচনের অর্থ কোথা থেকে পাবেন; আয়ের উৎস কি, বিগত ১০ বছরে তিনি কী ধরনের কাজ করেছেন—এসব বিষয় বিবেচনা করা হবে।

এবার যে বিষয়টি মনোনয়ন দেওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষভাবে দেখা হবে মনোনয়নপ্রত্যাশী প্রার্থীর বিরুদ্ধে দুর্নীতি, নিয়োগ, বদলি বাণিজ্য, চাঁদাবাজির অভিযোগ আছে কিনা। ওই মনোনয়নপ্রত্যাশীর বিরুদ্ধে মাদক এবং সন্ত্রাসের কোনো অভিযোগ রয়েছে কিনা। মনোনয়নপ্রত্যাশীর বিরুদ্ধে কোনো ফৌজদারি মামলা আছে কিনা। মামলা থাকলে কোন আমলে হয়েছে, কখন ও কী ধরনের অভিযোগ রয়েছে—তার সঠিক ব্যাখ্যা দিতে হবে।

এছাড়াও সম্প্রতি দেখা গেছে, আওয়ামী লীগের কতিপয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। বিশেষ করে ত্রাণের অর্থ আত্মসাৎ, টেন্ডারে অনিয়ম, নিয়োগ বাণিজ্যের মতো অভিযোগ যাদের বিরুদ্ধে উঠেছে তারা মনোনয়ন দৌড়ে পিছিয়ে পড়বেন। দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে এই ধরনের ব্যক্তিকেও এবার মনোনয়ন দেওয়া হবে না বলে দলের দায়িত্বশীল সূত্রগুলো নিশ্চিত করেছে।

দলের উপদফতর সম্পাদক সায়েম খানের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, উপনির্বাচনকে সামনে রেখে ওই পাঁচটি আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়েছে ১৪১টি। পাবনা-৪ আসনে ২৯ জন, ঢাকা-৫ আসনে ২১ জন, ঢাকা-১৮ আসনে ৫৫ জন, নওগাঁ-৬ আসনে ৩৩ জন, সিরাজগঞ্জ-১ আসনে তিনজন মনোনয়ন কিনেছেন।

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন....
© ২০২০-২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কমলগঞ্জের ডাক | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Developed By : Radwan Ahmed
error: কপি সম্পূর্ণ নিষেধ !!