1. info2@kamalgonjerdak.com : কমলগঞ্জের ডাক : Hridoy Islam
  2. info@kamalgonjerdak.com : admin2 :
  3. editor@kamalgonjerdak.com : Editor : Editor
শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ১২:৪১ অপরাহ্ন

পটিয়ায় দুর্গাপূজার বরাদ্দকৃত চাল নিয়ে নয়-ছয়

  • প্রকাশিত : শনিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৬০ জন পড়েছেন

অনলাইন ডেস্ক::

চট্টগ্রামের পটিয়ায় এবারের দুর্গাপূজা উপলক্ষে ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয়ের বরাদ্দকৃত অনুদানের চাল বিতরণে পুকুরচুরির অভিযোগ উঠেছে।

পটিয়া উপজেলা পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের নেতাদের অভিযোগ, উপজেলার ১৮৩টি মণ্ডপে সরকারি নিয়মে ৫০০ কেজি বরাদ্দকৃত চাল বিতরণ না করে মণ্ডপ প্রতি ১৫ হাজার ৫০০ টাকা নিতে বাধ্য করা হয়েছে। বর্তমান বাজার মূল্যে ৫০০ কেজি চালের দাম প্রায় ২০ হাজার টাকা আসে। সে হিসেবে মণ্ডপ প্রতি সাড়ে চার হাজার টাকা কম দিয়ে প্রায় সাড়ে ৮ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে উপজেলা প্রশাসনের একটি চক্র।

গত ১৫ অক্টোবর শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে পটিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সভাপতিত্বে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ও সার্বিক বিষয় নিয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তা ও সনাতনী সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভায় বিগত বছরের ন্যায় সরকারি ভোগ্যপণ্যের ডিও পৃথকভাবে পূজা মণ্ডপের সভাপতি কিংবা সাধারণ সম্পাদকের বরাবরে প্রদানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। ওই ডিও’র অনুকূলে পূজা মণ্ডপের প্রতিনিধিরা চাল বা নগদ অর্থ গ্রহণের সুযোগ পাবেন।

পটিয়া উপজেলা পূজা পরিষদের সভাপতি রূপক শীল দেশ রূপান্তরকে বলেন, উপজেলা পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের সভায় আমরা উপস্থিত থেকে বরাদ্দকৃত চাল সুষ্ঠুভাবে বিতরণের সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু প্রতি মণ্ডপের বরাদ্দ ৫০০ কেজি চাল যদি বর্তমান বাজার মূল্যে কম করে ধরলেও ৪০ টাকা হয়। সে হিসেবে ২০ হাজার টাকা করে পাওয়ার কথা। কিন্তু উপজেলা পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের সভাপতি বিপ্লব সরকার চাল আনতে প্রকল্প অফিসে গেলে তাকে চালের বিনিময়ে ১৫ হাজার ৫০০ টাকা নিতে বাধ্য করা হয় ।

পটিয়া পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের সমন্বয়ক পুলক চৌধুরী বলেন, বিগত বছরগুলোতে স্ব-স্ব মণ্ডপের সভাপতি ও সম্পাদকের নামে ডিও বরাদ্দ দেওয়া হলে যেসব মণ্ডপে প্রসাদ বিতরণ করা হয় তারা মণ্ডপে চাল নিয়ে যেতেন । আর অন্যরা ডিও বিক্রি করে বিক্রয়লব্ধ টাকায় মণ্ডপের ব্যয় নির্বাহ করতেন। এবারও সমন্বয় সভায় পূর্বের ন্যায় সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬ টায় ও শুক্র-শনিবার বন্ধের দিনে ডিও বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। মন্দির কর্তৃপক্ষ চাল নিতে চাইলেও তাদের চাল দেওয়া হয়নি। তাদেরকে ১৫ হাজার ৫০০ টাকা নিতে বাধ্য করা হয়েছে। এটা নিয়ে বিভিন্ন মাপের নেতৃবৃন্দ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

বাহুলি দুর্গাবাড়ি মণ্ডপের সভাপতি রাজিব চৌধুরী জানান, আমরা পিআইও অফিসে চালের জন্য গেলে প্রকল্প কর্মকর্তা সুপ্তশ্রী সাহা আমাদেরকে বাধ্য করেন চালের বিনিময়ে টাকা নিতে। আমরা বলেছি প্রতিবছর সরকারি বরাদ্দকৃত চালগুলো প্রসাদ হিসেবে পূজারিদের মাঝে বিতরণ করি। তখন তিনি বলেন, আমার কিছু করার নেই এবার সিদ্ধান্ত হয়েছে চালের বিনিময়ে টাকা দিতে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফয়সাল আহমেদ বলেন, উপজেলার ১৮৩ টি মাপের জন্য ৫০০ কেজি করে চাল বরাদ্দ ছিল। প্রতিটি মণ্ডপের নামে ৫০০ কেজি করে চালের আলাদা ডিও প্রত্যেক মণ্ডপ কমিটির হাতে বুঝিয়ে দেয়ার কথা বলা হয়েছে। এখনো পর্যন্ত আমাকে কেউ কোন অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পাওয়া গেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জানা গেছে, পার্শ্ববর্তী উপজেলা আনোয়ারা, কর্ণফুলী, বোয়ালখালী ও চন্দনাইশের পূজা মণ্ডপ সরকার প্রদত্ত নিয়মে ভোগ্যপণ্য কিংবা ডিও গ্রহণের সুযোগ পেলেও পটিয়া ছিল তার ব্যতিক্রম।

এ ব্যাপারে পটিয়া উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা কাঞ্চন মহাজন বলেন, আমার অফিসের দায়িত্ব আমরা যথাযথ ভাবে ডিওপি গুলো প্রকল্প কর্মকর্তার কাছে হস্তান্তর করেছি। এরপর কোথায় কি হয়েছে তা আমার বোধগম্য নয় । তবে এটা জানি এবার নাকি সিদ্ধান্ত হয়েছে চালের পরিবর্তে টাকা দেয়ার। আমি মনে করি চালের দামটা একটু কম হয়েছে।

সুপ্তশ্রী সাহা বলেন, আমরা উপজেলার ১৮৩টি মণ্ডপে ৫০০ কেজি করে চালের ডিও স্লিপ দিয়েছি। চালের বিনিময়ে প্রতি মণ্ডপে ১৫ হাজার ৫০০ টাকা করে নিতে বাধ্য করার অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে তিনি বিষয়টি উড়িয়ে দেন তিনি।

পূজা উদ্‌যাপন পরিষদ-পটিয়া বড়লিয়া ইউনিয়নের সভাপতি প্রীবর মিত্র বলেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সুপ্তশ্রী সাহার কাছে গিয়ে বরাদ্দকৃত চাল চাইলে তিনি তা দিতে পারবেন না বলে জানান। চালের পরিবর্তে ১৫ হাজার ৫০০ টাকা নিতে বলছেন। আমি বলেছি মণ্ডপের জন্য টাকা দরকার নেই। তিনি বলছেন এবার সিদ্ধান্ত হয়েছে চালের পরিবর্তে টাকা দেয়ার । তার কিছু করার নেই।

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন....
© ২০২০-২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কমলগঞ্জের ডাক | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Developed By : Radwan Ahmed
error: কপি সম্পূর্ণ নিষেধ !!